1. powerofpeopleworld@gmail.com : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. jashim_1980@hotmail.com : mohammad uddin : mohammad uddin
সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৫৭ পূর্বাহ্ন

ইঞ্জিনিয়ার দিবস পালন করল গুগল ডুডল!

এক বিখ্যাত ইঞ্জিনিয়ার, মোকশাগুন্ডাম বিশ্বেসবরণ্য, যিনি ইঞ্জিনিয়ারিং-এর জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন, আজ তাঁর জন্মদিন ইঞ্জিনিয়ার দিবস হিসাবে পালিত হচ্ছে। স্যর এমভি বিভিন্ন উদ্ভাবনী ডিজাইন আবিষ্কারের জন্য সারা বিশ্বে সমাদৃত। অনেকেই তাঁকে ইঞ্জিয়ারিং-এর জনক নামে অভিহিত করেছে। গুগল আজ তাদের ডুডল ডে-তে এম বিশ্বেসবরণ্যর ১৫৮ তম জন্মদিন পালন করছে। এমভি “কর্মই আরাধনা”-এই কথায় বিশ্বাসী ছিলেন।

আজকের ডুডলে স্যর এমভি-এর একটা রঙিন ছবি ও ব্যাকগ্রাউন্ডে একটা ব্রিজের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। ব্রিজটা এম বিশ্বেসবরেণ্যর অন্যতম উল্লেখযোগ্য কীর্তি, কৃষ্ণ রাজা সাগারা লেক অ্যান্ড ড্যামের প্রতীক হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে। ১৯২৪ সালে স্যর এমভি বিশ্বেসবরেণ্য কৃষ্ণ রাজা সাগারা লেক অ্যান্ড ড্যাম ডিজাইন করেন, যা সেই সময়কালে ভারতের বৃহত্তম জলাধার ছিল। তিনি ওই প্রোজেক্ট নির্মাণেরও দেখভাল করেছিলেন। ওই বাঁধ থেকে দেশের বহু শহরে পানীয় জল সরবরাহ করা হয়।

১৮০০ শতকের প্রথমার্ধে কর্ণাটকের মুদ্দেনাহল্লাই গ্রামে স্যর এমভির জন্ম হয়। যারা তাঁর কাজের সম্পর্কে জানেন তাঁরা অনেকেই তাঁর একাগ্রতার অনেক গল্প শুনে থাকবেন। অনেকেই বলেন বিশ্বেসবরেণ্য প্রায় ৬০ কিমি. পথ হেঁটে ব্যাঙ্গালুরুতে ইউনাইটেড মিশন স্কুলে পড়াশোনা করতে যেতেন এবং প্রায়ই রাতে রাস্তায় থেকে রাস্তার আলোতে পড়াশোনা করতেন।

এম বিশ্বেসবরেণ্য বোম্বে ইউনিভার্সিটি থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং-এর লাইসেন্স অর্জন করেন এবং বোম্বে শহরের পাবলিক ওয়ার্কস ডিভিশনে কাজ শুরু করেন। তারপর তিনি ইন্ডিয়ান ইরিগেশন কমিশনে যোগদান করেন। কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার জন্য তিনি ইয়ামেন শহরে যাওয়ার সুযোগ পান এবং সেখানে আডেনের ওয়াটার সাপ্লাই এবং ড্রেনেজ সিস্টেম সম্পর্কে পড়াশোনা করেন।

১৯০৯ সালে এম বিশ্বেসবরেণ্য মাইসোর শহরের চিফ ইঞ্জিনিয়ার পদে নিয়োজিত হন। ১৯১২ সাল থেকে টানা সাত বছর তিনি মাইসোরের দেওয়ান পদে নিযুক্ত ছিলেন। ইঞ্জিনিয়ারিং ও শিক্ষা ক্ষেত্রে তাঁর অবদানের জন্য ১৯৫৫ সালে তাঁকে ভারতরত্ন উপাধিতে ভূষিত করা হয়। এছাড়াও তিনি ব্রিটিশদের থেকে নাইট উপাধি পেয়েছিলেন। জর্জ ভি তাঁকে নাইট উপাধি দেন এবং তারপর থেকে তাঁকে ‘স্যর’ নামে অভিহিত করা হয়।

স্যর এমভি চিরকাল শিক্ষা ও ইঞ্জিনিয়ারিং-এর প্রতি নিজেকে উৎসর্গ করেছেন। ১৯১৭ সালে ব্যাঙ্গালোরে গভঃ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে তাঁর উল্লেখযোগ্য অবদান ছিল। পরবর্তীকালে তাঁর নামেই ওই কলেজের নামকরণ করা হয়। ব্যাঙ্গালুরু শহরের বুকে অবস্থিত বিশ্বেসবরণ্য ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড টেকনোলজিক্যাল মিউজিয়াম পর্যটকদের আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু। গত পঞ্চাশ বছরে সেখানে প্রায় চার কোটির বেশি পর্যটক গেছে। কর্ণাটকে এম বিশ্বেসবরেণ্যর বাড়িও স্থানীয়দের কাছে পূজনীয় স্থান।

ডুডলের সঙ্গে গুগল এমভি বিশ্বেস্যবরণ্যের পরিবার এবং বিশ্বেস্যবরেণ্য ন্যাশনাল মেমোরিয়াল ট্রাস্টের তরফে একটা নোট প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়াও তারা এমভিয়ের ছবি প্রকাশের পাশাপাশি তাঁর জীবন ও কাজ সম্পর্কেও উল্লেখ করেছেন।

আরো পড়ুন