1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন

একটা সময় গিয়ে দেখবেন বন্ধুদের মধ্যে দূরত্বটা কতো বেড়ে যায়!

একটা সময় গিয়ে দেখবেন বন্ধুদের মধ্যে দূরত্বটা কতো বেড়ে যায়। কারো কোন খবর নাই। একদিন রাস্তায় জ্যামে আচমকাই দেখা হবে।

— কিরে তোর না বিদেশ যাওয়ার কথা ?

— গিয়েছিলাম , পড়াশুনা কমপ্লিট না করেই চলে এসেছি।

শুধু অবাকই হবেন। অথচ তাকে নিয়ে কতো কিছুই না ভেবে ফেলেছিলেন।

একজন সাইন্টিস্ট হওয়ার স্বপ্নে বিভোর ছিল।
অথচ দেখবেন সে সাইন্টিস্ট হয়নি। হয়েছে সরকারী ব্যাংকের কর্মকর্তা।

একদিন আচমকাই দেখা হয়ে যাবে আপনার অপেক্ষাকৃত কম সুন্দরী বান্ধবীটার সাথে। সে আগের থেকেও সুন্দর হয়েছে। কোলে ফুটফুটে একটা সন্তান।

একজন পলিটিক্স করে বেড়াতো। অনেক বড় নেতা হওয়ারই কথা ছিল তার। সেটা হয় নাই। ভার্সিটি থেকে তার আগেই ড্রপ আউট।

শাটলে করে একসাথেই যেতেন। মধুর ক্যাটিনে একসাথেই উঠা বসা ছিল দুজনের। অথচ একটা সময় গিয়ে দেখবেন দুজনার পথ আলাদা। এখন রাস্তায় দেখা হলেও একজন আরেকজনকে না চেনার ভান করে চলে যায়।

হলের বন্ধুটার সাথে রাত জেগে কতো দিন তাস পিটিয়েছেন। একজন টেবিলের ড্রয়ার খুলে বাজাতো ড্রাম। একজন বানাতো গাজার রোল। সেই সময় পার করে এসে দেখছেন সেই ড্রামার এখন আমেরিকান টোব্যাকোতে চাকুরি করে।

গাজার রোল বানানো ছেলেটা দাড়ি টুপি মাথায় এখন চূড়ান্ত পর্যায়ের ধার্মিক। কে বলবে সে এক সময় গাজা খেতো ?

প্রবল উৎসাহে ৪র্থ বর্ষ থেকেই সরকারী চাকুরীর পড়াশুনা শুরু করা মেয়েটা এখন পুরো মাত্রায় সংসারী। বিয়ের ১ বছরের মাথায়ই চাকুরীর ইচ্ছে ছেড়ে দিয়েছে। এখন সংসারই তার সব।

জীবনটা খুবই চমকপ্রদ। এর শেষটা না দেখে আগে থেকেই আন্দাজ করা মুশকিল। জীবন কার জন্য কি ঠিক করেছে ,কে কোন সিটে যাবে সেটা আসলে আগে থেকেই বলা যায় না।

তাই খেলাটা শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিজের সবটুকু দিয়ে লড়ে যাওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ :-

Arafat Abdullah

University Of Chittagong

আরো পড়ুন