1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪৫ পূর্বাহ্ন

কাজের চাপ ঝেড়ে ফেলার ১০ উপায়!

অফিসের সময় কাজ নিয়ে ভাবনা হয়তো আপনার কাজকে এগিয়ে দেবে। কিন্তু অফিসের সময়ের বাইরেও যদি কাজ নিয়েই ভাবতে থাকেন তাহলে সেটি স্বাস্থ্যকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। অবনতি ঘটাবে পারিবারিক ও ব্যক্তিগত সম্পর্কে। এ ছাড়া উদ্বেগের কারণে আপনার অফিসে কাজের মানও খারাপ হয়ে যেতে পারে। এমনটাই জানিয়েছেন সান ফ্রান্সিসকো-ভিত্তিক মনোবিজ্ঞানী ডক্টর স্টিভ ওরমা। কীভাবে কাজের চাপ থেকে মুক্ত থাকা যাবে- এ বিষয়ে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ইয়াহু হেলথ দিয়েছে ১০ টি পরামর্শ।

অফিসের পথে গান শুনুন, বই পড়ুন

অফিসে ঢুকেই আপনাকে অনেক কাজ করতে হবে! এই ভাবনা থেকে মুক্তি পেতে প্রথমেই যেই কাজটি করতে পারেন সেটি হলো, অফিসে যাওয়ার পথে বাস বা ট্রেনে বসে পড়ে ফেলতে পারেন পছন্দের কোনো বই। অথবা হেড ফোন কানে লাগিয়ে শুনে নিতে পারেন পছন্দের কোনো গান। এগুলো কাজের চাপের ভাবনা থেকে আপনাকে হাজার মাইল দূরে নিয়ে যাবে এবং কাজ শুরুর আগে মনকেও বেশ ফুরফুরে করে দেবে।

পোশাকে ঢিলে করুন

যদি স্যুট, ব্যুট, টাই পরে অফিসে যান, তবে স্যুটটি খুলে রাখুন অথবা টাইটি একটু ঢিলে করুন এটা আপনাকে কিছুটা আরাম দেবে।

নিজেকে সময় দিন

সারাদিনের ব্যস্ততার মাঝেও নিজের জন্য কিছুটা সময় রাখুন। ৩০ মিনিটের জন্য একদম একা হয়ে যান। সম্ভব হলে একটি চমৎকার গোসল (শাওয়ার) নিন। নিজের পছন্দের কাজ করুন।

উদ্বেগ ঝেড়ে ফেলুন

যদি আপনার অফিসের কাজের সময় সকালবেলা হয় তাহলে বিকেলের দিকটায় অবসর থাকার চেষ্টা করুন। এ সময় শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যায়াম করুন এবং পেশির ব্যায়াম করুন। এই দুটো বিষয় কাজের উত্তেজনা থেকে রেহাই দিতে সাহায্য করবে আপনাকে।

হাত ধুয়ে আসুন

অফিসের কাজের সময় হয় তো শেষের দিকে। তখনো আপনার মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে মিটিংয়ের কথা বা অন্য কারো সঙ্গে যেসব কথা হয়েছে সেগুলো দুশ্চিন্তা হয়ে ঘোরাঘুরি করছে আপনার মাথায়। যদি এমনটাই
হয় তবে চটপট সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে আসুন, কাজে দিতে পারে। গবেষকরা বলেন, বিষয়টি ব্ল্যাকবোর্ড থেকে পুরনো জিনিস মুছে ফেলার মতো কাজ করে।

খেতে বসে কাজ নিয়ে আলোচনা নয়

কাজের উদ্বেগ অনেকটা বরফের বলের মতো। এটা সারাক্ষণ তার শীতল পরশ দিতে চাইবে। অনেকেই রাতের খাবারের সময় হয়তো বন্ধু বা সঙ্গীর সঙ্গে অফিসের কাজগুলো নিয়ে আলোচনা করেন। এটা না করাই ভালো। খাওয়ার সময় কেবল খাবারের দিকেই মনোযোগ দিন।

সময়ের কাজ সময়ে শেষ

সময়ের কাজ সময়ে শেষ করুন। যখন আপনি কোনো প্রতিবেদন বা প্রকল্প তৈরি করছেন তখন সেটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করার চেষ্টা করুন। কাজ জমিয়ে রাখলে চাপ বাড়বে।
চেষ্টা করুন অফিসের সময়ের মধ্যেই কাজগুলো শেষ করতে। কাজ যদি বাসায় নিয়ে যান আপনার পরিবার এবং ব্যক্তিগত সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

দিনশেষে কাজের সফলতার স্বাদ নিন

সম্প্রতি ফ্লোরিডা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, দিন শেষে কয়েক মিনিট কাজের সফলতাগুলো ভাবুন। যেসব কাজ আপনি শেষ করেছেন এবং যেই কাজগুলো ভালো হয়েছে সেগুলো নিয়ে ভাবুন। একটি নোট খাতায় লিখেও রাখতে পারেন বিষয়গুলো। এটা অফিস থেকে বের হওয়ার পরও আপনাকে একটি ভালো অনুভূতি দেবে।

কাজের বাইরে অনুষ্ঠান

চমৎকার কোনো ফুটবল ম্যাচ, রোমান্টিক রাতের খাবার, বাসার কোনো পার্টি- যাই করুন না কেন অফিসের সময়ের পরে করুন। এতে সানন্দে অনুষ্ঠানটি উপভোগ করতে পারবেন। এগুলো আপনার কাজের একঘেয়েমিকে দূর করতেও সাহায্য করবে।

ডিজিটাল শেকল বিচ্ছিন্ন করুন

অফিস থেকে বের হওয়ার পর মোবাইলে অফিসের কাজ সংক্রান্ত খুদে বার্তা, ইমেইল ও ভয়েস মেইলের বার্তা- এসব বিষয় থেকে দূরে থাকুন। এগুলো কাজের সময় শেষে হওয়ার পরও কাজের ভাবনা থেকে বিছিন্ন হতে দেয় না।

তাই অফিসের সময়ের বাইরে চেষ্টা করুন কাজের ভাবনা থেকে দূরে থাকার। এই বিরতি পরবর্তী দিনের কাজকে সুন্দরভাবে করতে সাহায্য করবে।

আরো পড়ুন