1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪:১৯ পূর্বাহ্ন

তার এবং ক্যাবল কি !

আজ আমরা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানবো।তা হল তার এবং ক্যাবলের মধ্যে পার্থক্য কি। বেশি কথা না বলে মূল কাজে চলে যাই।তার বা অয়ার এবং ক্যাবল এর মধ্যে প্রধান পার্থক্যটা হল তার হল শুধুমাত্র একটি কন্ডাক্টর যেখানে ক্যাবল হল দুই বা ততধিক কন্ডাক্টরের একটি গ্রুপ। তার এবং কেবল শব্দ দুটি প্রায় সমার্থক হলেও তারা প্রকৃতপক্ষে দুটি ভিন্ন বস্তু। এদের পৃথক করে বুঝতে হলে এই কথাটি মনে রাখতে হবে যে,‘তার হল ক্যাবলের একটি কম্পোনেন্ট বা অংশ মাত্র। এছাড়াও তার এর ব্যবহারিক ক্ষেত্রও অনেক বিশাল। তার হল সাধারণত এলুমিনিয়াম বা কপারের তৈরি করা এক বা একাধিক স্ট্র্যান্ড দ্বারা তৈরি ইলেক্ট্রিকালি কনডাকটিভ মেটারিয়াল।অন্যদিকে, কেবলে দুই বা ততোধিক ইনস্যুলেটেড কনডাক্টর থাকতে পারে যা বেয়ার বা নগ্ন অথবা কভারড থাকতে পারে। তার এবং ক্যাবলকে বোঝার আর একটি সহজ উপায় হচ্ছে,তার সব সময় দৃশ্যমান থাকে কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ক্যাবল ইনস্যুলেটেড থাকে।

তার প্রধানত দুই রকমের হয়। সলিড অথবা স্ট্র্যান্ডেড। সলিড তার বা অয়ার হল সাধারণত বড় দৈর্ঘ্যের একটি মাত্র কন্ডাক্টর। অন্যদিকে স্ট্র্যান্ডেড অয়ার হল টুইস্টেড হয়ে থাকা একত্রিত অনেকগুলো চিকন স্ট্র্যান্ড। সলিড অয়ারের রেজিস্টেন্স কম থাকে এবং উচ্চ কম্পাঙ্কে ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত। অন্যদিকে স্ট্র্যান্ডেড অয়ার বেশি ফ্লেক্সিবল বা নমনীয় হয় বলে বেশি দিন টেকে। তার প্রধানত ইলেক্ট্রিকাল এবং টেলিকমিউনিকেশন সিগনাল সরবরাহের জন্য ব্যবহৃত হয়। কিন্তু এর আরও অনেক ব্যবহার আছে। যেমন মেকানিকাল লোড ব্যবহার করা, হিটিং, জুয়েলারি,ক্লথিং বা পোশাক ইত্যাদিতেও তার ব্যবহার করা হয়।

ক্যাবল হল দুই বা ততোধিক তারের একত্রে বাঁধা বা পাকানো অবস্থা। তারা সাধারণত ইনস্যুলেটেড অবস্থায় থাকে যেটা তাদেরকে তারের থেকেও বেশি প্রোটেকশন দেয়। ক্যাবল প্রদাণত ইলেকট্রিকাল এবং টেলিকমিউনিকেশন সিগনাল সরবরাহে ব্যবহৃত হয়। ক্যাবল বিভিন্ন ধরণের আছে যেমন টুইস্টেড পেয়ার ক্যাবল, কোক্সিয়াল ক্যাবল, মাল্টি কন্ডাক্টর ক্যাবল, ফাইবার অপটিক ক্যাবল ইত্যাদি। টুইস্টেড পেয়ার ক্যাবলে দুটি ক্যাবল একে অপরের সাথে টুইস্টেড হয়ে থাকে এবং সেটা প্রধাণত সিগনাল বহনে ব্যবহৃত হয়। মাল্টিকন্ডাক্টর ক্যাবলে অনেকগুলো কন্ডাক্টর একে অপরের সাথে ইনস্যুলেটেড অবস্থায় থাকে এবং একে সহজেই নিয়ন্ত্রঙ্করা যায়। কোক্সইয়াল ক্যাবলে দুটি কন্ডাক্টর থাকে যাদের সিগনাল সমান হয় না। একে আনব্যালেন্সড লাইন বলে এবং এর পারফরমেন্স টুইস্টেড পেয়ার ক্যাবলের চেয়েও ভাল হয়। ফাইবার অপটিক ক্যাবল তিন ধরণের হয়। প্লাস্টিক ফাইবার অডিও পাঠানোর কাজে, মাল্টিমোড ফাইবার ডাটা পাঠানোর কাজে ব্যবহৃত হয়। আর তিন নম্বর ফাইবারটি হল সিঙ্গেলমোড ফাইবার যা অণুবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্যেই কেবল দেখা যায় এবং এর পারফরমেন্স সবচেয়ে ভাল।

এক নজরে তার এবং ক্যাবলের তুলনাঃ

সংজ্ঞাঃ তার একটি কন্ডাক্টর বিশিষ্ট যেখানে ক্যাবল দুই বা ততোধিক কন্ডাক্টার বিশিষ্ট।

ব্যবহারঃ তার ইলেক্ত্রিকাল বা টেলিকমিউনিকেশন সিগনাল বহনে, মেকানিকেল লোড, হিটিং, জুয়েলারি, ক্লথিং, জাল, পিন, সূচ, বাল্ব প্রভৃতিতে ব্যবহৃত হয় যেখানে ক্যাবল শুধুমাত্র ইলেক্ট্রিক এবং টেলিকমিউনিকেশন সিগনাল বহন ও পাওয়ার ট্রান্সমিশনে ব্যবহৃত হয়।

প্রকরণঃ তার দুই রকমের যথা সলিড এবং স্ট্র্যান্ডেড যেখানে ক্যাবল টুইস্টেড পেয়ার, কোক্সিয়াল, মাল্টিকন্ডাক্টর, ফাইবার অপটিক ইত্যাদি হতে পারে।

সুবিধাঃ সলিড অয়ার হায়ার ফ্রিকোয়েন্সিতে ব্যবহৃত হয়, লো রেসিস্টেন্স দেয়। স্ট্র্যান্ডেড অয়ার অধিক টেকশই হয়। অন্যদিকে ক্যাবল বেশি শক্তিশালী, কর্মক্ষম এবং ইনস্যুলেটেড হয়।

আরো পড়ুন