1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

নাটোরে তৈরি হচ্ছে পরিবেশবান্ধব ইট!

নাটোরে বালি ও সিমেন্ট দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে পরিবেশবান্ধব ইট। শহরতলির দীঘাপতিয়া এলাকায় স্থাপিত মামুন ইকো ব্রিকস নামে একটি প্রতিষ্ঠান এ ইট তৈরি করছে। সংশ্লিষ্টদের দাবি, এ ইট ব্যবহারে কৃষিজমি রক্ষার পাশাপাশি দূষণের হাত থেকে রক্ষা পাবে পরিবেশ।

দেশে বায়ুদূষণের প্রধান করাণ ইটভাটা। ইটভাটার কারণে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকিও। এ পরিস্থিতিতে পোড়ানো ইটের পরিবর্তে বালি ও সিমেন্টের ইট বিকল্প হয়ে উঠতে পারে। জানা যায়, চলতি বছরের শুরুর দিকে মানুম ইকো ব্রিকসে পরিবেশবান্ধব ইট তৈরির মেশিন স্থাপন করা হয়। চীন থেকে আনা এ মেশিন দিয়ে দিনে তিন হাজার ইট তৈরি সম্ভব। এছাড়া মেশিনেই ইটগুলোয় বিশেষ রঙ করা যায়।

মামুন ইকো ব্রিকসের স্বত্বাধিকারী মামুন ভুঁইয়া বলেন, নাটোরে প্রচুর পরিমাণে পোড়া মাটির ইট তৈরি হয়। এখান থেকে রাজশাহী ও বগুড়ায়ও ইট সরবরাহ করেন ভাটা মালিকরা। ফলে ইট তৈরির মাটি সংগ্রহ করতে প্রচুর পরিমাণে কৃষিজমি নষ্ট হচ্ছে। এ অবস্থায় আমি পরিবেশবান্ধব ইট তৈরির মেশিন নিয়ে আসি। তবে মানুষের মধ্যে এ ইট সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা না থাকায় এখনো সেভাবে চাহিদা তৈরি হয়নি। পরিবেশবান্ধব এ ইট তৈরিতে ব্যবহার হচ্ছে সিমেন্ট, বালি ও পাথরের গুঁড়ো। দূষণ না থাকায় এ ইট তৈরিতে জড়িতদের স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়তে হয় না।

মামুন ইকো ব্রিকস কারখানার শ্রমিক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, পোড়া মাটির ইটভাটায় কাজ করতে গেলে পরিশ্রম বেশি হয়। কিন্তু এখানে সে তুলনায় পরিশ্রম কম। তাছাড়া ভাটার ধোঁয়ায় অনেক সময় স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়। এখানে সে ভয় নেই।

নাটোর শহরতলির ভাটোদ্বারা এলাকার সোহাগ হোসেন এ ইট দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করছেন। তিনি বলেন, পোড়া মাটির ইটের তুলনায় এ ইটে খরচ কম। তাছাড়া নির্মাণকাজও খুব দ্রুত এগোয়।

এদিকে সরকারি অবকাঠামোয় পরিবেশবান্ধব ইট ব্যবহার করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে একটি নির্দেশনা জারি করা হয় গত জানুয়ারিতে। এ বিষয়ে কথা হয় নাটোর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন আক্তার বানুর সঙ্গে। তিনি বলেন, ইকো ইট ব্যবহারের জন্য সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু সরকার শিডিউলে যে দাম নির্ধারণ করে, পরিবেশবান্ধব ইটের দাম তার চেয়ে বেশি পড়ে যাচ্ছে। এ কারণে পরিবেশবান্ধব ইট ব্যবহার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে ভবিষ্যতে যেকোনো প্রকল্পে পরিবেশবান্ধব ইট যাতে ব্যবহার করা যায়, সে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নাটোর গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম বলেন, ইকো ইট ব্যবহারের জন্য সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। সে নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য আমরা পরিবেশবান্ধব ইট সরকারি অবকাঠামোয় ব্যবহারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে চাহিদার তুলনায় এখনো এ ইটের উৎপাদন বাড়েনি। তাই পরিবেশবান্ধব ইট ব্যবহারে সবার আগ্রহ বাড়ছে না।

তথ্য সূত্র: বণিক বার্তা।

আরো পড়ুন