1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪৯ পূর্বাহ্ন

পাট পণ্যের নতুনত্ব

দেশের সোনালী আঁশ পাট। সময়ের সঙ্গে অনেকটাই হারিয়ে যাওয়া এই আঁশ নতুন করে ঠাঁই পাচ্ছে আমাদের পোশাকে, ঘরে, অফিসে। অনেকেই আছেন যারা দেশীয় আমেজে সাজাতে চান নিজেকে, নিজের আশপাশকে। তাদের কাছে পাট এবং হাল ফ্যাশানের যুগলবন্দী বেশ আকর্ষণীয়।

একটা সময় ছিল, যখন পাটের পণ্য মানেই বোঝাতো দড়ি, চট আর বস্তা। তবে এখন ব্যাপারটা একেবারেই ভিন্ন। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এখন পাট এসেছে নানা আঙ্গিকে, নানা রূপে।

সাজানোর ক্ষেত্রে সবার আগে প্রাধান্য দেওয়া হয় নিজেকে। তাই পছন্দের পোশাক থেকেই শুরু ফ্যাশানের যাত্রা। পোশাকে পাটের ব্যবহার চলে আসছে অনেক আগে থেকেই। পাটবস্ত্রের তৈরি সেলোয়ার, কামিজ, ফতুয়া, পাঞ্জাবি আজও ঠাঁই পায় ফ্যাশান হাউসগুলোতে। পাটের তৈরি বলে যে এইসব পোশাক ভারী বা একঘেয়ামি হবে তা কিন্তু একেবারেই ভুল ধারণা। ডিজাইনের ক্ষেত্রে ঋতু, হাল ফ্যাশান, বয়স ইত্যাদিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়। শুধু তাই নয়, সোনালি আঁশের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে অন্যান্য তন্তুও। যা একদিকে অধুনিক অন্যদিকে আরামদায়কও। তাই যাঁরা গতানুগতিক ফ্যাশান ছেড়ে নতুন কিছু খুঁজছেন তারা নির্দ্বিধায় বেছে নিতে পারেন পাটবস্ত্রের তৈরি পোশাক।

সাজে পরিপূর্ণতা আনতে পোশাকের সঙ্গে চাই ম্যাচিং অ্যাকসেসরিজ। এক্ষেত্রেও রয়েছে পাটের পণ্যসমাগ্রী। পাটের তৈরি অলংকার, জুতা, বেল্ট, ব্রেসলেট, ব্যাগে সাজে যেকোনো লুকের সঙ্গে মানিয়ে যায়। ডিজাইনের ভিন্নতা, রঙের থেকে সহজে বেছে নেওয়া যায় পছন্দেরটি। যেকোনো রঙ বা লুকের সঙ্গে সঙ্গে পাটের অ্যাকসেসরিজ খুব সুহজেই মানিয়ে যায়।

নিজেকে সাজানোর পর এবার পালা আপন ভুবনকে সাজানোর। দিনের বেশিরভাগ সময় বাড়িতে বা অফিসে কাটানোর ফলে অচিরেই এই স্থানগুলো হয়ে ওঠে আমাদের আপনভুবন। তাই এর সাজগোজেও দেওয়া চাই মনোযোগ।

ঘর সাজাতে পাটের রয়েছে একাধিক অপশন। পাটের ল্যাম্প শেড, কুশন, কাভার, চাদর, শো-পিস, ম্যাট, ছবি হতে পারে দারুণ আকর্ষণীয়।

একবার ভেবে দেখুন আলো ছায়ার খেলায় পাটের ল্যাম্প শেড ঘরকে দিচ্ছে কাব্যিক রূপ। শুধু কি তাই? রাতের আকাশে চাঁদ দেখতে যখন আপনি এলিয়ে দিচ্ছেন নিজেকে পাটের দোলনায়, তখন তা হয়ে উঠবে অধিক উপভোগ্য। এমনকি ঘরের চাদর বা কুশন কাভারে পাটের ছোঁয়া প্রকাশ করবে আপনার শৌখিনতার ভিন্নতাকে।

আফিসেও পাটের ব্যবহার চোখে পড়ে আজকাল। বিশেষ করে বড় করপোরেট হাউস বা বেসরকারি সহায়তা সংস্থা (এনজিও)। এ ধরনের অফিসগুলো বিদেশিদের কাছে নিজস্বতাকে তুলে ধরতে পাটের সামগ্রী বেছে নেয় অকপটে। পাটের ম্যাট, পেন হোল্ডার, টিস্যু বক্স ইত্যাদি কর্পোরেট লুকের সঙ্গে ট্রেডিশনাল লুকের দারুণ মেলবন্ধন করে। দৈনন্দিন কাজের ক্ষেত্রেও পাটের পণ্য ব্যবহার হয়ে থাকে। পাটের ব্যাগ, বস্তা, চট, পাপোষ হরহামেশাই আমাদের কাজে লাগে।

এতো গেল সাজগোজের প্রসঙ্গ। এবার আসা যাক পাট পণ্যের বিশেষত্বে। পাট পণ্যের দীর্ঘস্থায়িত্ব অনেক বেশি, যা আবার অনেক সময় একাধিক বার ব্যবহার করা যায়। তাই নির্দিধায় বলা যায় পাটের পণ্য সাশ্রয়ী। বহুল ব্যবহৃত প্লাস্টিক ব্যাগ বা পলিথিনের মতো এটি পরিবেশের জন্যও ক্ষতিকর নয়।

দিনদিন বাড়ছে পাটজাত পণ্যের চাহিদা। ঐতিহ্যবাহী পণ্য বলেই পাটজাত পণ্য কিনছেন মানুষ। তাই পাট দিয়ে তৈরি নানারকম আকর্ষণীয় ফ্যাশনেবল পণ্যের দিকে ক্রেতাদের আগ্রহের কমতি নেই।

আরো পড়ুন