1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৯ অপরাহ্ন

প্রথম জীবনে চাকরি মেলেনি চীনের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির !

চীনের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি জ্যাক মা। তিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন ই-কমার্স ওয়েবসাইট আলীবাবা। কিন্তু আজকের সফলতার আগে তাঁর জীবনে ছিল ধারাবাহিক ব্যর্থতা। নতুন ভাবনা এবং কঠোর পরিশ্রম তাঁকে আজকের অবস্থানে নিয়ে এসেছে।

বিশ্বজুড়ে এক কোটি লোক প্রতিদিন ই-কমার্স সাইট আলীবাবা থেকে পণ্য কেনে। জ্যাকের সম্পদ রয়েছে দুই হাজার ৪০০ কোটি ডলারেরও বেশি।কিন্তু জীবনের শুরুতে সাফল্য ধরা দেয়নি জ্যাকের হাতে। একটি কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় টানা তিনবার ফেল করেছিলেন জ্যাক। লেখাপড়া শেষ করে চাকরি খুঁজতে নামলেন। একে একে ৩০টা চাকরির সাক্ষাৎকার দিলেন এবং সবগুলো থেকেই বাদ পড়লেন।

জ্যাক মা নিজেই বলেছেন, ‘আমি পুলিশে চাকরি করার জন্য গিয়েছি। সেখানে বলা হয়েছে, আমাকে দিয়ে পুলিশের চাকরি হবে না। এরপর আমি কেএফসিতেও গিয়েছি চাকরির জন্য। সেখানে আমার সাথে আরো ২৩ জন সাক্ষাৎকার দিয়েছিল, সবাইকে নেওয়া হলো, বাদ পড়েছিলাম শুধু আমি।’

১৯৯৮ সালে নিজের প্রতিষ্ঠান আলীবাবা প্রতিষ্ঠা করেন জ্যাক। এখান থেকে শুরু হয় তার আরেক যুদ্ধ। প্রথম তিন বছরে লাভের মুখ দেখেনি আলীবাবা। এটা নিয়ে তাঁকে বেশ খাটতে হয়েছে। প্রথমদিকে অনলাইনে মূল্য পরিশোধের কোনো ব্যবস্থা ছিল না সাইটটিতে। কোনো ব্যাংকই আলীবাবার সাথে কাজ করতে রাজি হয়নি।

জ্যাক বলেন, ‘আলীপে চালু করার আগে আমি অনেকের সাথে কথা বলেছি, তাদের পরামর্শ চেয়েছি। সবাই বলেছে এটা চালু করা বোকামি হবে। আমার কাছে এটাকে বোকামি মনে হয়নি। মানুষ ঠিকই সুযোগটা লুফে নিয়েছে।’এখন বিশ্বজুড়ে আট কোটি মানুষ আলীপে ব্যবহার করে।এরপর ব্যাংকের কাছে না গিয়ে জ্যাক নিজেই অনলাইনে মূল্য পরিশোধের ব্যবস্থা ‘আলীপে’ চালু করেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুদ্রায় মূল্য পরিশোধের সুযোগ সৃষ্টি হয় এই ব্যবস্থায়।

এরপর ব্যাংকের কাছে না গিয়ে জ্যাক নিজেই অনলাইনে মূল্য পরিশোধের ব্যবস্থা ‘আলীপে’ চালু করেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুদ্রায় মূল্য পরিশোধের সুযোগ সৃষ্টি হয় এই ব্যবস্থায়।

আরো পড়ুন