1. [email protected] : jashim sarkar : jashim sarkar
  2. [email protected] : mohammad uddin : mohammad uddin
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ১০:১০ পূর্বাহ্ন

যে ব্যবসায় কোন লস নাই, এক নজরে কিছু ডিলারশিপ বিজনেস আইডিয়া!

ডিলারশিপ বিজনেস হল ব্যবসায়ের নানা ধরনের মধ্যে একটি দারুন ব্যবসা ব্যবস্থা। যেখানে আপনি যেকোন কোম্পানির যেকোন পন্য নিয়ে পাইকারি দরে ব্যবসা করবেন। সেই ব্যবসায় পাবেন কোম্পানির পক্ষ থেকে বিভিন্ন সু্যোগ সুবিধা। এছাড়াও এই ব্যবসায় খুব কম সময় দিয়ে, আপনি ভালো একটি এমাউন্ট আয় করার সু্যোগ পেতে পারেন।

যেভাবে শুরু করবেনঃআপনি যদি ডলারশিপ বিজনেস শুরু করতে চান, তবে আপনাকে প্রথমেই ঠিক করতে হবে আপনি কোন ধরনের পন্য নিয়ে কাজ করতে চান। সেটা হতে পারে ফুড আইটেম, কন্সট্রাকশন আইটেম, অথবা অন্য কিছু।

যেমন ইলেকট্রনিক আইটেমের মাঝেঃ সিঙ্গার, ওয়াল্টন

ফুড আইটেমের মাঝেঃ প্রান, স্কয়ার

কন্সট্রাকশ্ন আইটেমের মাঝেঃ বিএসআরএম বা সেভেন রিংস কম্পনির সাথেও কাজ করতে পারেন।

এরপর কোম্পানি ঠিক হয়ে গেলে, আপনাকে ঠিক করতে হবে আপনি সেই কোম্পানির কোন কোন প্রোডক্ট নিয়ে কাজ করবেন। ফুড কোম্পানিতে সাধারনত প্রোডাক্ট আইটেম বেশি থাকে, তাই আপনি চাইলেও সব আইটেম নিয়ে কাজ করার সক্ষমতা আপনার নাও থাকতে পারে। এ জন্য বিভিন্ন পন্য সম্বিলিত গ্রুপ নিয়ে আপনাকে কাজ করতে হবে।

তথ্য পাবেন কোথায়ঃআপনি কোন কোম্পানির ডিলারশিপ নিতে চাইবেন, তবে আপনার কাগজ পাতি ওকে করে কোম্পানিকে তার চাহিদা মত টাকা পরিশোধ করে দিবেন। আপনি সেই কোম্পনির কোন ডিলারের সাথে প্রথমে কথা বলে এ বিষয়ে জেনে নিন। একজন পরিচিত ডিলারের সাথে কথা বলে, জানতে পারা গেছে যে, আপনি যে কোন ডিলারের সাথে কথা বলেই কাগজ পাতি জমা দিতে পারবেন।

পুজিঁ কত লাগবেঃডিলারশিপ কোম্পানির ব্যবসার পুজিঁ নির্ভর করে, আপনি কোন কোম্পানির কতটি পন্যের ডলারশিপ নিতে চান তার ওপর। এ জন্য প্রান কোম্পানির এক ডিলারের সাথে কথা বলে জানতে পারা গেছে যে, তাদের প্রতিটি পন্যের ডলারশিপ পেতে আপনাকে পরিশোধ করতে হবে ১৫০০০০ টাকা। তবে পুরো টাকার পন্য পেয়ে যাবেন আপনি, কোন জামানত লাগবে না।

সুবিধাঃডিলারশিপ ব্যবসায় নানা ধরনের সুবিধা আছে। যেমনঃ কোম্পানি থেকে মাল বিক্রয়ে এস আর পাবেন আপনি। তাছাড়া, মাল বিক্রয়ের জন্য আপনাকে সারাদিন মাল ঘরে বসে থাকার প্রয়োজন নাই। মাল যখন ডেলিভারী হবে তখন উপস্থিত থেকে গাড়ি বা ভ্যানে উঠানোর তদারকি করলেই চলবে। তাই আপনি ইচ্ছা করলে পার্ট টাইম ব্যবসা হিসেবেও করতে পারেন এটি।

অসুবিধাঃসুবিধার পাশপাশি কিছু অসুবিধাও আছে ডিলারশিপ ব্যবসায়। মেসার্স একতা এন্টারপ্রাইজ এর স্বত্তাধিকারী এক ভাইয়ের সাথে কথা বলে জানা গেছে যে, ডিলারশিপ ব্যবসার অন্যতম সমস্যা হল মাল ডেলিভারী দেয়ার সময় কোন ভ্যান বা গাড়ি পাওয়া যায় না। গাড়ির ড্রাইভার পাওয়া যায় না বা থাকতে চায় না। এছাড়াও বর্ষাকালে বিক্রয় কমে যায়, ফলে লাভ তেমন থাকে না।

সম্ভাব্য আয়ঃডিলারশিপ ব্যবসায় আয় মোটামুটি খারাপ না। এক সাথে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন রকমের পন্য নিয়ে আপনি খুব ভালো আয় করতে পারেন। তবে সাধারনত শীতকালে আয় ভালো হয়, কারণ তখন পন্যের ক্রয় ও বিক্রয় ভালো হয়। তাই বিক্রয় যত বাড়াতে পারবেন, তত আয় বেড়ে যাবে; সেই সাথে কোম্পানির পক্ষ থেকে মিলবে কমিশন ও নানা রকম সুবিধা।

পরিশেষে বলা যায় যে, যদি আপনি চাকরির পাশাপাশি অথবা অন্য কিছুর সাথে ভালো পরিমান আয়ের কথা চিন্তা করে থাকেন তবে ডিলারশিপের ব্যবসা আপনার জন্য হতে পারে সেরা পছন্দ। এজন্য ভালো কোন কোম্পানির এবং চাহিদাশীল পন্য দেখে ডিলারশিপ নিতে পারলে, আপনার অতিরিক্ত আয় হিসেবে বেশ ভালো টাকা উপার্জন হবে বলা যায়।

আরো পড়ুন